ফেসবুক থেকে

৯০০ বছর পর এলো চোখ ধাঁধানো তারিখ

৯০০ বছর পর এলো চোখ ধাঁধানো তারিখ

ফিচার ডেস্ক ::: আজকের তারিখটার মধ্যে চোখ ধাঁধানো বিষয় লুকিয়ে আছে, খেয়াল করেছেন কি? এটি একটি আন্তর্জাতিক প্যালিনড্রোম তারিখ। ‘মাস/দিন/বছর’ বা ‘দিন/মাস/বছর’ তারিখটি যেভাবেই লেখেন না কেন এটি কার্যকর হয় যেকোনো বিপরীত দিক থেকে। ০২-০২-২০২০; খেয়াল করুন- উল্টো দিক থেকেও সংখ্যাটি একই। শব্দ বা সংখ্যা নিয়ে বিভিন্ন শব্দের খেলা যারা খেলে থাকেন, তারা প্যালিনড্রোম নামটির সঙ্গে পরিচিত। প্যালিনড্রোম মানে হল যে শব্দকে সামনে থেকে বা পেছন থেকে পড়লে শব্দের উচ্চারণ আর অৰ্থের কোন বদল হয় না। এ জাতীয় প্যালিনড্রোমের শেষ তারিখটি ছিল ১১-১১-১১১১; প্রায় ৯০০ বছর আগে। সর্বব্যাপী প্যালিনড্রোমস বলা হয় এ ধরনের তারিখগুলোকে। পরবর্তী ১০১ বছরের জন্য আর এমন কোনো তারিখ পাওয়া যাবে না। আপনাকে ৩ মার্চ, ৩০৩০ অবধি অপেক্ষা করতে হবে সর্বব্যাপী প্যালিনড্রোমস তারিখের জন্য। মূল গ্রীক শব্দ প্যালিনড্রোমাস থেকে ইংরেজি প্যা
রেজাউলের চিকিৎসায় এগিয়ে আসুন

রেজাউলের চিকিৎসায় এগিয়ে আসুন

জয়নাল আবেদীন ::: মিরসরাই উপজেলার ৫ নম্বর ওচমানপুর ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের পশ্চিম সাহেবপুর গ্রামের ওয়াহাব আলী ভূঁইয়া বাড়ীর ফকির আহম্মদের পুত্র রেজাউল করিম (৩৬) জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষনে। সকলের সহায়তায় স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে চায় সে। রেজাউল একটি প্রাইভেট কোম্পানীতে স্বল্প বেতনে চাকুরী করে। চলতি বছরের ৬ মে রাত ১২ টার সময় হঠাৎ হার্ট অ্যার্টাক করে সে। তখন প্রথমে তাকে ঢাকা কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়, পরবর্তীতে উন্নত চিকিসার্থে ঢাকা মিরপুর ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশনে স্থানান্তর করারপর সেখানে এনজিওগ্রাম করলে হার্টে ৪ টি ব্লক ধরা পড়ে। বর্তমানে সে ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন'র বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর ডা.ফজিলাতুন নিসা মালিক'র অধীনে চিকিৎসাধীন। যতই দিন অতিবাহিত হচ্ছে ততই তার শারীরিক অবস্থার অবণতি ঘটছে। চিকিৎসকরা তাকে দ্রুত অপারেশনের মাধ্যমে হার্টে অন্তত ৩ টি রিং পরতে
আজ যে শিশুটিকে ধর্ষন করেছে সে বড় হয়ে হয়তো একজন রত্নগর্ভা মা হতে পারতো

আজ যে শিশুটিকে ধর্ষন করেছে সে বড় হয়ে হয়তো একজন রত্নগর্ভা মা হতে পারতো

শাহরিয়ার হোসাইন চৌধুরী সিজান ::: পৃথিবীর প্রত্যেক নারীই এক এক জন মা। তাঁর বয়স যতই হোক, তাঁর সন্তান থাকুক বা না থাকুক, সে একজন মা। কিন্তু এই কথাটা অনেকেই মনে রাখে না। কারনে অকারণে তাকে বিভিন্ন স্থানে হেয় প্রতিপন্ন হতে হয়। কারন সে নারী, তার দেহবল কম। কিন্তু বর্তমান সভ্যতা শুধুমাত্র দেহবল দ্বারায় সৃষ্টি হয়নি। তার সঙ্গে রয়েছে মানুষের অসীম ধৈর্য্য ও অধ্যবসায়। নারীর দেহবল কম হলেও তার রয়েছে অসীম ধৈর্য্যশীলতা। সভ্যতার শুরু হয়েছিলো কিন্তু নারী হতেই। তারাই প্রথম কৃষি কাজের সূচনা করে। তাদের এতো অবদানের পরেও তাদের একমাত্র দুর্বলতা হলো তাদের শরীরের আকর্ষনীয় গঠন। যা কিছু চরিত্রহীন পুরুষের লালসার কারন হয়ে দাঁড়ায়। এই কারনে নারীদের ধর্ষনের শিকার হতেহয়। তাদের কুনজর হতে ছোট শিশুরাও বাচতে পারে না। কারন তারা তাদের কামোদ্দীপনায় ভুলে যায় এরা প্রত্যেকেই এক এক জন মা। তারা এটা চিন্তা করে না যে তাদের জন্মের আগ

হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ ঠিক কেনো?

সাদমান সময় ::: হিন্দু - বৌদ্ধ- খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ ঠিক কেনো? এদেশে মুসলমান একদিকে আর বাকি তিন ধর্ম কি আলাদা বসবাস করে? আমার ফ্রেন্ড সার্কেলে যে কজন অন্য ধর্মের আছে, বিশেষ করে হিন্দু ধর্মের তাদের সাথেই শৈশব থেকে বড় হয়েছি, একসাথে ঘুরি ফিরি আজও তা বহমান। কোনো ধন্ধ তো কখনো হয়নি। এই ঐক্য পরিষদ একটি দেশে জাতীয় ধর্ম বাদ দিয়ে বাকি তিন ধর্ম নিয়ে ঐক্য পরিষদ গড়ে তোলার যুক্তি ঠিক কোন কাঠগড়ায়?? অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ হিসেবে যেভাবে প্রচার ও প্রসার এই ঐক্য পরিষদ কি চরম সাম্প্রদায়িকতা নয়?? আচ্ছা মানলাম কিছু এলাকা আছে যেখানে ধর্মের চরমপন্থি লোক আছে ডিরেক্ট আমার ধর্ম ইসলামের কথাই বলছি, সেসব স্থানে যদি সংখ্যালঘু হয় সেটা হয়তো ভাববার বিষয় কিন্তু আমাদের মিরসরাইয়ের মতো যেসব এলাকা রয়েছে? এখানে ঐক্য পরিষদ ঠিক কোন কারণে? আমি ৭ম ও ৮ম শ্রেনীতে থাকাকালীন বাসায় এসে আমায় একজন হিন্দু স্যার ইংরেজি পড়াতেন
মোটেই অবাক হই না-শেখ আতাউর রহমান

মোটেই অবাক হই না-শেখ আতাউর রহমান

ফেসবুক থেকে ::মোটেই অবাক হই না।মানুষের চরম স্বার্থপরতায় অন্যের কৃতিত্বকে নিজের বলে চালিয়ে দেওয়া কিংবা নিজের ভূমিকাকে মূখ্য এবং একক বলে জাহির করা দেখে।কারণ এরকম ঘটনা আমার জীবনে বহুবার ঘটেছে। স্থান -কাল- এবং অবস্থার বিবেচনার প্রতিবাদও করিনি কখনও। ৮ তারিখ সকাল ১০-৪০ মি: মোশাররফ ভাইয়ের নিজ খরচে (কোন কোটা নয়) হজ্বে পাঠানো হাজ্বীদের ফ্লাইট। ৫তারিখ শুক্রবার বাদজুমা বারৈয়ারহাট জামে মসজিদে ১০ জন হাজ্বীকে মোশাররফ ভাই কিছু নগদ টাকা সহ বিমানের টিকিট তাদের হাতে তুলে দিলেন। উপস্থিত ট্রাভেল এজেন্সির লোক জাকারিয়া হজ্ব এর নিয়ম- শৃংখলা উপরে কিছু পরামর্শ দিয়ে বললেন তিনি ৮তারিখ সকালে বিমান বন্দরে ১০টি পাসপোর্ট হাজ্বীদের হাতে পৌঁছাবেন। মোশাররফ ভাই সহ আমরা সংশ্লিষ্টরা নিশ্চিত হলাম। কিন্তু ৮তারিখ সকালে ৮টায় ১৬ নং সায়েরখালি ইউনিয়নের হাজ্বী গনি মিয়ার ফোন পেয়ে যেন বজ্রাহত হলাম। তিনি বললেন ট্রাভেল এজেন্সি
ওস্তাদ স্পিড বাড়ান সামনে স্টুডেন্ট

ওস্তাদ স্পিড বাড়ান সামনে স্টুডেন্ট

নিউজ ডেস্ক ::: রাজধানীর প্রগতি সরণিতে সুপ্রভাত বাসের চাপায় নিহত বিইউপি শিক্ষার্থী নিহত হওয়ার পর নিরাপদ সড়কের দাবিতে আবারও কিছু লিফলেট, প্লাকার্ডে ও কার্টুন ভাইরাল হয়েছে। যার মধ্যে একটিতে স্কুলড্রেস পরা এক ছাত্রের হাতে থাকা কাগজে লেখা, ''ওস্তাদ স্পিড বাড়ান সামনে স্টুডেন্ট''। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কেউ কেউ আবার মন্তব্য করছেন, ''পড়াশুনা করে যে গাড়ি চাপা পড়ে সে''। এছাড়া 'কয়লার রাস্তা নাকি, রক্তের রাস্তা?', 'নিজের সিরিয়ালের অপেক্ষা করুন' ও 'উই ওয়ান্ট জাস্টিস'সহ আরও বেশ কিছু মন্তব্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে রাজধানীর প্রগতি সরণিতে সুপ্রভাত বাসের চাপায় প্রাণ হারান বিইউপির ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র আবরার। নিয়ম মেনেই আরবার পথচারী পারাপারের জন্য নির্ধারিত স্থান জেব্রা ক্রসিং দিয়ে রাস্তা পার হচ্ছিলেন বলে জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা। নিরাপদ সড়কের
উপজেলা পরিষদ নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন ভাইস চেয়াম্যান প্রার্থী আরিফ

উপজেলা পরিষদ নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন ভাইস চেয়াম্যান প্রার্থী আরিফ

মিরসরসরাই উপজেলা পরিষদ নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালের ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী ফেরদৌস হোসেন আরিফ। তিনি তার ব্যক্তিগত ফেসবুক আইডিতে আজ বিকাল ৪টায় এক স্ট্যাটাসে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানো বিষয়টি জানিয়েছেন। নিম্মে তার দেয়া ফেসবুক স্যাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হলো। আমার কিছু কথা...   কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি মিরসরাইবাসি, মুজিব আদর্শের সৈনিকদের- যারা অকৃত্রিম ভালবাসা দিয়ে আমাকে ঋণের জালে আবদ্ধ করেছেন। আপনাদের এই ঋণ শোধ করার সামর্থ আমার নেই, শুধু এটাই বলতে পারি যত দিন বেচেঁ থাকবো আপনাদের সাথেই থাকবো।   ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি আমার সিদ্ধান্তের জন্য- এই সিদ্ধান্ত কোনো প্রতিশ্রুতি, অনুরোধ বা বিনিময়ের নয়। মিরসরাই আওয়ামীলীগের সুন্দরের জন্য আমি নির্বাচন থেকে সরে এসেছি। একটাকে পরাজয় ভাবার কোনো অবকাশ নেই। কারণ সব পরাজয়ই পরাজয় নয়।   রাজনীতিতে পদ পদবি লাভের জন্য ষড়যন্ত্র করার যে দক্ষতা প্রয়োজন স
যেভাবে ফেসবুক ভিডিও থেকে আয় করবেন

যেভাবে ফেসবুক ভিডিও থেকে আয় করবেন

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক ::: জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক। শুধুই কী তাই! এর বাইরে ফেসবুকে নানা উদ্যোগের মাধ্যমে বিশ্বজুড়ে কর্মসংস্থানের সুযোগ পাচ্ছেন তরুণ-তরুণীরা। এছাড়াও ভিডিও তৈরি করে ফেসবুকে প্রকাশের মাধ্যমে তৈরি হয়েছে আয়ের নতুন পথ। বর্তমানে বিশ্বের ৩২টি দেশের ব্যবহারকারীরা ফেসবুকে এই সুবিধা পাচ্ছেন। ‘অ্যাড ব্রেকস’ নামে ফেসবুকের এই সুবিধার তালিকায় রয়েছে বাংলাদেশও। এখন ফেসবুকে ভিডিও পোস্ট করে আয় করতে পারেন আপনিও। অ্যাড ব্রেকস কী? অ্যাড ব্রেকস এর অর্থ হচ্ছে বিজ্ঞাপন বিরতি। মনে করেন, আপনি ফেসবুকে কোন ভিডিও দেখছেন। ভিডিও এর মাঝে হঠাৎ করে ১০-১৫ সেকেন্ডের একটি বিজ্ঞাপন চলে আসলো। কিংবা ভিডিও এর নিচে একটি অ্যাপস ডাউনলোডের বিজ্ঞাপন দেখাচ্ছে। এই বিজ্ঞাপনদাতা থেকে ফেসবুকের আয়ের ৫৫ ভাগ জমা হবে ভিডিও প্রকাশকারীর অ্যাকাউন্টে। বর্তমানের বাংলা ও ইংরেজি ভাষায় প্রকাশিত ভিডিওতে এই সুবিধ
ঘরে ঘরে গ্যাস বোমা !!!

ঘরে ঘরে গ্যাস বোমা !!!

মঈনুল হোসাইন টিপু ::: গ্রামাঞ্চলে খুব সম্ভবত এখন খুব কম ঘরই আছে যেখানে গ্যাস সিলিন্ডার নেই।আগে গ্রামে কাঠ,খড় আর লাকড়ি দিয়ে চুলায় রান্না হতো; এখন কি আর গৃহিনীদের আগুন ধরিয়ে,চুলায় ফু দিয়ে,ধোয়ার কুন্ডলিতে রান্না করার সে সময় আর ধৈর্য আছে? সময় বাঁচানোর জন্য হোক আর ঝামেলা এড়ানোর জন্য হোক কিংবা জরুরি প্রয়োজনে- একটা গ্যাসের চুলা থাকা চাই-ই। এটি যতটানা নিতান্ত প্রয়োজনের তারচেয়ে বেশি এই ধারণার জন্য 'ওর ঘরে তো আছে,আমার ঘরে নাই কেন? ওটায় রান্না করি আর না করি অন্তত শোভা বর্ধনের জন্য হলেও আনা চাই। আমি আবার এলপিজি গ্যাস সিলিন্ডারের প্রয়োজনীয়তার বিপক্ষে নই। কিন্তু মুশকিল হলো, ইদানীং গ্রামাঞ্চলে যতগুলো অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটছে কিংবা অগ্নিকান্ডের পরে আগুনের মারাত্মক রুপ ধারণ করছে এবং প্রচুর ক্ষয়ক্ষতি হচ্ছে তার বেশির ভাগের মূল কারণ এ গ্যাস সিলিন্ডার। এমন না যে গ্যাসের চুলোয় রান্না করার আগে আগুন লাগতো
এ মাসেই দেখা যাবে ‘সুপার ব্লাড মুন’, তবে…

এ মাসেই দেখা যাবে ‘সুপার ব্লাড মুন’, তবে…

নিউজ ডেস্ক ::: ইংরেজি নতুন বছরের প্রথম মাসেই দেখা যাবে ‘সুপার ব্লাড মুন’। বিভিন্ন দেশের সময়ের তারতম্য হিসেব করে জানুয়ারির ২০ অথবা ২১ তারিখে পূর্ণগ্রাসে দৃশ্যমান হবে এই মহাজাগতিক উপগ্রহ। তবে বাংলাদেশ বা এশিয়ার কোনো দেশ থেকে এ দৃশ্য দেখা যাবে না। আমেরিকা, পশ্চিম ইউরোপ আর আফ্রিকা থেকে মহাজাগতিক ঘটনাটি প্রত্যক্ষ করা যাবে। বাংলাদেশ সময় সকাল ১০টা ৪১ মিনিটে ওইদিন পূর্ণগ্রাস চন্দ্রগ্রহণের সময় ‘সুপার ব্লাড মুন’ দেখা যাবে। ৬২ মিনিট চলবে চন্দ্রগ্রহণ। যদিও সম্পূর্ণ গ্রহণটি চলবে সাড়ে তিন ঘণ্টা সময় ধরে। এরপর ২০২১ সালের ২৬ জুন দেখা যাবে পূর্ণগ্রাস চন্দ্রগহণ। এর আগে ২০১৮ সালের ২৭ জুলাই দেখা গিয়েছিল এই ‘সুপার ব্লাড মুন’। চাঁদ ও সূর্যের সঙ্গে এক সরলরেখায় পৃথিবী চলে গেলে চন্দ্রগ্রহণ হয়। তখন সূর্যের আলো পৃথিবীতে আটকে গিয়ে আর চাঁদে পৌঁছাতে পারে না। ফলে চন্দ্রগ্রহণ হয়। চন্দ্রগ্রহণের সময় চাঁদ থেকে
error: Content is protected !!