১৯ অবসান দুয়ারে ২০ ঘটনাবহুল চট্টগ্রাম

১৯ অবসান দুয়ারে ২০ ঘটনাবহুল চট্টগ্রাম

মিরসরাইনিউজ ডেস্ক :::

নানা ঘটনা দুর্ঘটনায় চট্টগ্রামবাসী পার করলো ২০১৯। প্রাকৃতিক দূর্যোগ, নগরের সড়কজুড়ে ওয়াসার দুর্ভোগ, রাজনৈতিক মান-অভিমান, নতুন সড়ক আইনসহ, বিভিন্ন ঘটনা চট্টগ্রামে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু ছিল বছর জুড়ে। সবকিছু ছাড়িয়ে একের পর এক রেল দুর্ঘটনার কারণে আতঙ্কের পরিবহনে পরিণত ‘নিরাপদ বাহন’ হিসেবে খ্যাত এই যানটি। তবে বিভিন্ন দূর্যোগ-দুর্বিপাকের মধ্যেও এ বছর কিছু প্রাপ্তিও ছিল।

বছরজুড়ে আলোচনায় জাতীয় নির্বাচন
২০১৮ সালের বাংলাদেশের জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় ৩০ ডিসেম্বর। বছরের শেষ পর্যায়ে অনুষ্ঠিত হওয়া এ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন আলোচনা-সমালোচনায় মুখর ছিল ২০১৯। তবে ভোট শুরুর আগের মুহূর্তে চট্টগ্রাম-১০ আসনের শহীদনগর সিটি কর্পোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের একটি কেন্দ্রে ব্যালট ভর্তি বাক্সের ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার পর ব্যাপক আলোচনা সমালোচনার জন্ম দেয়। পরে অবশ্য স্থগিত করা হয় ওই কেন্দ্রটির ভোট গ্রহণ।

বৃহত্তর চট্টগ্রামজুড়ে বন্যার ভোগান্তি
চলতি বছর জুলাইয়ের মাঝামাঝি সময়ে বন্যায় তলিয়ে যায় বৃহত্তর চট্টগ্রাম। ওই সময় ৪৮ ঘন্টার অবিরাম বর্ষণে কোথাও হাঁটু, কোথাও কোমর, আবার কোথাও গলা সমান পানিতে ডুবে যায় চট্টগ্রাম মহানগরী। এসময় চট্টগ্রাম ছাড়াও কক্সবাজার ও বান্দরবান জেলায় বন্যা পরিস্থিতি দুর্ভোগে ফেলে চট্টগ্রামবাসীকে। এছাড়াও ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ ও ‘ফণী’ ছিল বছরের আলোচিত প্রাকৃতিক দূর্যোগ।

বছরজুড়ে সমালোচনায় ওয়াসার ‘কোপ’
২০১৫ সাল থেকে চট্টগ্রাম পানি সরবরাহ উন্নয়ন ও স্যানিটেশন প্রকল্প ও জাইকার অর্থায়নে কর্ণফুলী পানি সরবরাহ প্রকল্পের পাইপ লাইন বসানোর জন্য বছরজুড়ে চলে ওয়াসার সড়ক খোঁড়াখুঁড়ি। ওয়াসা সূত্র বলছে, এই প্রকল্পের কাজ চলবে ২০২০ সালের জুন পর্যন্ত। খোঁড়া সড়ক দ্রুত সংস্কার না হওয়ায় সড়কগুলোতে যানজট লেগে থাকার পাশাপাশি বছরজুড়ে দুর্ঘটনা-দুর্ভোগ নিত্যসঙ্গী হয় নগরবাসীর। সর্বশেষ চলতি বছর বুধবার (২৫ ডিসেম্বর) নগরীর চকবাজারে ওয়াসার খুঁড়ে রাখা গর্তে পড়ে জয়দেব চক্রবর্তী নামে এক যুবকের নাড়িভুঁড়ি বেরিয়ে যায়। এ নিয়ে আবারও নগরবাসীর সমালোচনার তীরে ক্ষতবিক্ষত হয় ওয়াসা।

উৎসবে শুরু দুর্ঘটনায় শেষ রেলের বছর
বছরের শুরুতে নতুন কোচ ও বগি সংযোজন সহ রেলে নিরবিচ্ছিন্ন সেবা বাস্তবায়নে বহুমুখী উন্নয়ন পরিকল্পনা গ্রহণ করে রেলওয়ে। তবে একের পর এক রেল দুর্ঘটনায় ম্লান হয়ে যায় এসব উদ্যোগ। চলতি বছর ১২ নভেম্বর ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবার মন্দবাগে চট্টগ্রাম থেকে ঢাকাগামী তূর্ণা নিশীথা এবং সিলেট থেকে চট্টগ্রামগামী উদয়ন এক্সপ্রেসের সংঘর্ষে অর্ধশতাধিক আহত হওয়ার পাশাপাশি নিহত হয় ১৬ জন। এছাড়াও চট্টগ্রাম-নাজিরহাট রুটে এবং কুমিল্লার শশীদল এলাকায় চলতি ডিসেম্বরেই ঘটে পৃথক দু’টি দুর্ঘটনা। সব মিলিয়ে আতঙ্কের পরিবহনে পরিণত হয় নিরাপদ বাহন হিসেবে খ্যাত এই যানটি।

আঁধারের দোলাচলে নতুন আলোর আশা ২০২০
বন্দরনগরী চট্টগ্রামে বিভিন্ন সেবা সংস্থার মাধ্যমে চলছে কয়েক হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ। চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (চউক), চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক), চট্টগ্রাম ওয়াসা, চট্টগ্রাম বন্দর ও পানি উন্নয়ন বোর্ডসহ প্রায় ৩২টি সেবাদানকারী সংস্থা তদারকিতে চলছে এসব প্রকল্পের কাজ। চট্টগ্রামের জলাবদ্ধতা নিরসন, এলিভেটেট এক্সপ্রেসওয়ে, ফ্লাইওভার, নগরীর সমুদ্র সৈকত ঘিরে আউটার রিংরোড, কর্ণফুলীর তলদেশ দিয়ে টানেল নির্মাণ, চট্টগ্রাম বন্দরের বে টার্মিনাল নির্মাণ প্রকল্প ও যানজট নিরসনসহ চলতি বছরের বিভিন্ন চলমান কাজ যদি সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয় তাহলে বদলে যাবে বন্দরনগরী চট্টগ্রামের চিত্র। তাই বছরজুড়ে নানা দূর্যোগ-দুর্বিপাকের মধ্যেও নতুন বছরকে ঘিরে আঁধারের দোলাচলে নতুন আলোর স্বপ্ন বুঁনছেন নগরবাসী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!