মজহারুল হক স্কুলের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা সম্পন্ন

মজহারুল হক স্কুলের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা সম্পন্ন

আজিজ আজহার :::

মিরসরাই উপজেলার মজহারুল হক চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয়ের দুইদিন ব্যাপী বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা ও পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছে। এই অনুষ্ঠানকে ঘিরে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে উঠে বিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস। ছিলো প্রাক্তন শিক্ষার্থীরাও।

বুধবার (১৯ফেব্রুয়ারি) সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সদস্য মোতাহের হোসেন চৌধুরী জুয়েল।

এর আগে গত ১৬ ফেব্রুয়ারি দুইদিনব্যাপী অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন মজহারুল হক চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা আলহাজ্ব আজহারুল হক চৌধুরী নওশা মিয়া।

মজহারুল হক চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান (ভারপ্রাপ্ত) শিক্ষক মোহাম্মদ শাহাদাত হোসেন, শিক্ষক মাওলানা মো. শিহাব উদ্দিন ও মোস্তাফিজুর রহমান রিয়াদের যৌথ সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা হুমায়ুন কবির খান।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক এম সাইফুল্লাহ দিদার, সদস্য কংকন দে, মজহারুল হক চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. হেদায়েত উল্লাহ চৌধুরী, কিছমত জাফরাবাদ এমএ চৌধুরী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা রাশেদা বানু, প্রতিষ্ঠাতা পরিবারের সদস্য মনোয়ার হোসেন চৌধুরী রাফেল, মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী পাভেল, মুক্তিযোদ্ধা জানে আলম চৌধুরী, সমাজকর্মী কাজী নুর উদ্দিন, সহকারী শিক্ষক মোহাম্মদ নিজাম উদ্দিন, মোহাম্মদ রেজাউল করিম, মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন সহ বিদ্যালয়ের সকল শিক্ষক-শিক্ষিকা ও শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা আলহাজ্ব আজহারুল হক চৌধুরী নওশা মিয়া তার বক্তব্যে বলেন, ‘অচিরেই এই বিদ্যালয়কে কলেজে রূপান্তরিত করা হবে। তাই অতিতের ন্যায় সকলের সহায়তা কামনা করেন।’ অভিভাকদের উদ্দেশ্যে তিনি আরও বলেন, প্রযুক্তি সাথে তাল মিলিয়ে শিক্ষার্থীরা মোবাইলের প্রতি আসক্তি বেড়েই চলছে। পড়াশুনার পাশাপাশি যোগাযোগের জন্য এ যন্ত্রটি ব্যবহার করা হলেও প্রভাব পড়ে পড়াশুনার উপর।’

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হেদায়েত উল্লাহ্ চৌধুরী বলেন, খেলাধুলা, সাংস্কৃতিক, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও মুক্তিযুদ্ধকে জানি, দূনীর্তি দমন কমিশনের বিতর্ক সহ বিভিন্ন ইভেন্টে বিজয়ী ১২৫টি শিক্ষার্থীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

সর্বশেষে সন্ধ্যায় ৭টায় বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও অতিথি শিল্পিদের অংশগ্রহণে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে দুইদিনব্যাপী অনুষ্ঠানের সমাপ্ত ঘটে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!