নুসরাত হত্যার প্রতিবাদে মিরসরাই স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার মানববন্ধন

নুসরাত হত্যার প্রতিবাদে মিরসরাই স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার মানববন্ধন

আজিজ আজহার/ সাদমান সময় :::

সারাদেশে নারী, শিশু, যৌন নির্যাতন, ইভটিজিং ও ফেনীর সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসার আলিম পরীক্ষার্থী নুসরাত জাহান রাফি হত্যার প্রতিবাদে জড়িতদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি ও মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজের ফাঁসির দাবিতে মিরসরাইয়ে মানববন্ধন করেছে মিরসরাই সম্মিলিত স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা।
মানববন্ধন শেষে একটি মৌন মিছিল ও প্রধানমন্ত্রী বরাবরে সারাদেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের যৌন হয়রানি প্রতিরোধে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কর্তৃক একটি উচ্চ পর্যায়ের মনিটরি সেল গঠনের দাবিতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাধ্যমে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।

বুধবার (২৪ এপ্রিল) সকাল ১০টায় পৌর সদরের ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মিরসরাই সরকারী মডেল পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে ঘন্টা ব্যাপী মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে মিরসরাই সম্মিলিত স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা। মানববন্ধনে সামাজিক সংগঠন ছাড়াও অংশগ্রহণ করেন, মিরসরাই সরকারী মডেল উচ্চ বিদ্যালয়, মিরসরাই বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, মারুফ মডেল প্রাথমিক ও উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, রাজনৈতিক ব্যাক্তি বর্গ ও বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষক-প্রভাষক সহ মিরসরাই উপজেলার ২৮টি সামাজিক সংগঠনের প্রতিনিধিরা।

শান্তিনীড় সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার আশরাফ উদ্দিন সোহেলের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন মাতৃকা হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা: জামশেদ আলম, মিরসরাই বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের অধ্যক্ষ নুরুল আবছার, মিরসরাই উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ফেরদৌস হোসেন আরিফ, চট্টগ্রাম উত্তর জেলা শিক্ষক সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক সুভাষ সরকার, মজহারুল হক চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হেদায়েত উল্লাহ্ চৌধুরী, মিরসরাই সরকারী মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক হোসাইন সবুজ, কেরাণী বাড়ী পাঠাগারের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ফজলুল করিম লিটন, শতাব্দী ক্লাবের সভাপতি সাংবাদিক এম মাঈন উদ্দিন, প্রজন্ম মিরসরাইয়ের সভাপতি ওমর ফারুক, দুর্বার প্রগতি সংগঠনের অর্থ সম্পাদক আলী হায়দার চৌধুরী, নির্বাণ সংঘের সভাপতি তানভীর আহম্মেদ, অভিযান ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক রিপন দাশ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ শওকত, মিরসরাই স্পোর্টিং ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা জসিম উদ্দিন দুলাল, শান্তিনীড় সদস্য রায়হান চৌধুরী প্রমুখ।

এসময় বক্তারা মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজউদ্দৌলাসহ তার দোসরদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিতের দাবি জানান। নুসরাত হত্যাকাণ্ডের বিচার দ্রুত শেষ করতে হবে। ঘটনার সঙ্গে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে জড়িত ব্যক্তিদের বিচার করতে হবে। পাশাপাশি যারা অপরাধীদের পক্ষ নিয়ে বিচার বিঘ্নিত করছে, তাদেরও অবিলম্বের গ্রেফতার করতে হবে।

প্রসঙ্গত, গত ৬ এপ্রিল সকালে আলিম পরীক্ষা দিতে সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদরাসায় যান নুসরাত জাহান রাফি। সেখানে তার গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়। ১০ এপ্রিল (বুধবার) রাত সাড়ে ৯টায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে মারা যান অগ্নিদগ্ধ নুসরাত। পরদিন সকালে ময়নাতদন্ত শেষে মরদেহ স্বজনদের বুঝিয়ে দিলে বিকেলে সোনাগাজী পৌরসভার উত্তর চরচান্দিয়া গ্রামের পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!