ইসলামী শিক্ষার আলোকবর্তিকা কাটাছড়ার কাছেমুল উলুম মাদ্রাসা

ইসলামী শিক্ষার আলোকবর্তিকা  কাটাছড়ার কাছেমুল উলুম মাদ্রাসা

নিজস্ব প্রতিবেদক :::

ইসলামী শিক্ষায় আলোকিত মানুষ তৈরির শ্রেষ্ঠ বিদ্যাপীঠ মিরসরাই উপজেলার ৭নং কাটাছড়া ইউনিয়নের পশ্চিম দুর্গাপুর ফয়েজিয়া কাছেমুল উলুম মাদ্রাসা। ১৯৮৫ সালে আড়াই একর জমির উপর ইসলামি শিক্ষার আলো ছড়ানোর উদ্দেশ্যে পিছিয়ে পড়া অদিবাসীদের জনপদ পশ্চিম দুর্গাপুর অজপাড়া গাঁ এলাকার দানশীল শিক্ষানুরাগী ক্বারি নুরুজ্জামানের প্রচেষ্টায় এবং এলাকাবাসির একান্ত সহযোগিতায় এ ঐতিহ্যবাহী দ্বীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নবীপ্রেমিক মুহাক্কিক তৈরীর উদ্দেশ্যে পথ চলা শুরু করে। শুরুতে চন দিয়ে বাঁশের বেড়ার ছোট্ট ঘরে নুরানি, কিতাব ও হেফজ বিভাগে ক্লাস শুরু হয়। প্রতিষ্ঠালগ্নে ছাত্র সংখ্যা বাড়ানোর জন্য সম্পুর্ন বিনা খরচে ফ্রি ক্লাসে পাঠ দান শুরু করেন। বর্তমানে নিয়মিত ছাত্র সংখ্যা প্রায় ২শ ৫০জন। গরিব ও এতিম আবাসিক ছাত্র প্রায় ৫০জন।

মাদ্রাসার পরিচালনা পরিষদের সভাপতি শাহাদাত হোসেন, সাধারন সম্পাদক মাস্টার মনসুর আহমদ দুলাল। মাদ্রাসার মুহতামিম মাওলানা আবদুল হান্নান বলেন, মানবিক মুল্যবোধ ও কোরআনের বিধান অনুসারে জীবন গড়তে হলে ইসলামী শিক্ষার কোন বিকল্প নেই। সে উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে যুগোপযোগী করে শিক্ষার্থীদের গড়ে তুলতে সব ধরনের শিক্ষার ব্যবস্থা রয়েছে ফয়েজিয়া কাছেমুল উলুম মাদ্রাসায় । এ মাদ্রাসায় লেখাপড়ার মান অত্যন্ত ভালো। বিভিন্ন সময় ক্বেরাত, হামদ-নাত প্রতিযোগিতায় এ মাদ্রাসার ছাত্ররা প্রথম স্থান, দ্বিতীয় স্থান অর্জন করে মাদ্রাসার সুনাম অক্ষুন্ন রেখেছে। বর্তমানে ছাত্রদের খেলার মাঠ, আবাসিক ভবন, মসজিদে ইবাদত সুব্যবস্থা না থাকায় সমস্যা হচ্ছে। এ সংকট দুর হলে কাছেমুল উলুম মাদ্রাসা সুনাম মিরসরাই উপজেলার সীমানা ছাড়িয়ে আশপাশের জেলায় ছড়িয়ে পড়বে। গত ১০ বছর ধরে এ মাদ্রাসার সুখ দুঃখে জড়িয়ে আছেন মাদ্রাসার উপদেষ্টা বিশিষ্ট সি এন্ড এফ ব্যবসায়ী সমাজ সেবক ও দানবীর সাইফুল ইসলাম সাঈফ। তিনি প্রায় অর্ধকোটি টাকা খরচ করে মাদ্রাসার ভবন নির্মান করেন। প্রতি মাসে মাদ্রাসার আবাসিক খাতে এতিম ও গরিব ছাত্রদের ফ্রি থাকা-খাওয়া ও পড়া-লেখার খরচ পরিচালনার জন্য প্রায় অর্ধ লক্ষাধিক টাকা নিয়মিত প্রদান করে আসছেন। তিনি এ মাদ্রাসার ছাত্র- শিক্ষকদের অভিভাবক। তিনি মাদ্রাসার উন্নয়নের সিড়ি। এ মাদ্রাসাকে ঘিরে তিনি অনেক বড় স্বপ্ন দেখেন। ভবিষ্যতে তাঁর হাত ধরে এ মাদ্রাসা বহুদুর এগিয়ে যাবে। আল্লাহ মাদ্রাসার উপদেষ্ঠা সাইফুল ইসলাম সাইফ কবুল করুন।তাঁর সকল স্বপ্ন বাস্তবায়ন সহজ করে দিন।

সাইফুল ইসলাম সাঈফ বলেন, আমার গ্রাম আমার মায়ের মত। মাকে ভালোবাসলে নিজের গ্রামকে ভালোবাসতে হবে। আমি গ্রামকে ভালোবাসি। গ্রামকে অনুন্নত রেখে নিজের উন্নতি চিন্তা করতে পারিনা। যে গ্রামে জন্ম গ্রহন করেছি, সে গ্রামের প্রতি দায়বদ্ধতা অনেক। সে দায়বদ্ধতা থেকে আমি গ্রামের গরীব অসহায় মানুষের সুখ দুঃখে পাশে থাকার চেষ্টা করি। শিক্ষার প্রসারে গ্রামের গরীব শিক্ষার্থীদের সহায়তা প্রদান করি, গরীব কন্যা দায়গ্রস্থ পিতাকে সহযোগিতা করি, এলাকার মসজিদ- মক্তবে আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভের জন্য অনুদান দিয়ে থাকি। প্রত্যেকে সামর্থ অনুযায়ী তার পাশের অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ালে গ্রামে অসহায় মানুষ থাকবেনা। আমার আগামী দিনের স্বপ্ন কাছেমুল উলুম মাদ্রাসা একটি উন্নত মডেল মাদ্রাসায় উন্নীত করা। এ মাদ্রাসা লেখাপড়ায় মিরসরাইয়ের আলোক বর্তিকা হয়ে উঠবে। অবকাঠামোগত উন্নয়ন, নতুন ভবন নির্মান, মসজিদ সম্প্রসারণ, আবাসিক ছাত্রদের হোস্টেল নির্মানে এলাকার দানশীল বিত্তবানরা এগিয়ে আসলে দ্রুত এ অঞ্চলে দ্বীনের আলো ছড়াবে এ প্রতিষ্ঠান।

সভাপতির বক্তব্যে বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী শাহাদাত হোসেন বলেন, কাছেমুল উলুম মাদ্রাসার ৩৫ বছরের অতীত ইতিহাস গৌরবের, বর্তমানও উজ্জ্বল, ভবিষ্যতেও এ মাদ্রাসা আপন মহিমায় সমুজ্জল অম্লান হয়ে থাকবে। এ মাদ্রাসার জন্য রয়েছে এলাকার শিক্ষানুরাগী ও গরীবের বন্ধু সাইফুল ইসলাম সাইফের দানের প্রশস্ত হাত। তাই এ মাদ্রাসার সংশ্লিষ্ট সকলে ভাগ্যবান। দিনদিন ফয়েজিয়া কাছেমুল উলুম মাদ্রাসার উন্নতি সবাইকে স্মরণ করিয়ে দেয় এ মাদ্রাসার নেপথ্যের মানুষ সাইফুল ইসলাম সাইফের ভুমিকা। সাইফুল ইসলাম সাঈফ এর অক্লান্ত শ্রম আর ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় এ মাদরাসায় সর্বদা যুক্ত হচ্ছে নিত্য নতুন ব্যবস্থা। বিনামূল্যে শিক্ষা সামগ্রী, থাকা খাওয়ার ফ্রী ব্যবস্থা, পরিবহনসহ সবকিছু রয়েছে এ মাদ্রাসায়। এছাড়া নিরিবিলি গ্রামীন পরিবেশে শিক্ষার্থীদের চিন্তা চেতনা বিকাশের জন্য সহায়ক ভূমিকা পালন করছে। গতি ১০ নভেম্বর দুপুরে এ মাদ্রাসায় সরেজমিনে গিয়ে এ প্রতিবেদক দেখতে পান শিক্ষার্থীরা জোহরের সালাত আদায় করে দুপুরের খাবারের প্রস্তুতি নিচ্ছে। ক্লাস, নামায, খাওয়া সব কিছুতে দৃষ্টিনন্দন ছন্দের মত শৃঙ্খলা। মাদ্রাসার উপদেষ্টা সাইফুল ইসলাম সাঈফ মাদ্রাসায় উপস্থিত থেকে শিক্ষার্থীদের জন্য স্পেশাল খাবারের আয়োজন করেন।

বিশেষ অতিথি হিসেবে আসেন মিরসরাই প্রেসক্লাবের সভাপতি নুরুল আলম, আলহাজ্ব আবুল হোসেন মেম্বার, সাবেক উপজেলা যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক অনির্বান চৌধুরী রাজিব, ৮নং দুর্গাপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক নাজিম উদ্দিন রুবেল, মাদ্রাসার পরিচালনা পরিষদের সাধারন সম্পাদক মাস্টার মনসুর আহমদ দুলাল ও দুর্গাপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি ছলিম উল্লাহ প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!