আরব আমিরাতে সংবর্ধনায় সিক্ত হলেন ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ

আরব আমিরাতে সংবর্ধনায় সিক্ত হলেন ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ

আরব আমিরাত প্রতিনিধি :::

মহান মুক্তিযুদ্ধে বিশেষ অবদানের জন্য রাষ্ট্রের সবচেয়ে বড় সম্মাননা স্বাধীনতা পদক লাভ করায় মিরসরাই থেকে ৭ বার নির্বাচিত সংসদ সদস্য, বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক জীবনের অন্যতম সহযোদ্ধা, আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য, সাবেক মন্ত্রী
ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেনকে সংবর্ধিত করেছে সংযুক্ত আরব আমিরাতের মিরসরাই সমিতি।

গত ১ মে আজমান মহিন-৩, সন্ধ্যায় আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠান ছিলো কানায় কানায় পূর্ণ। স্বাধীনতা পুরস্কার লাভ করায় মিরসরাই সমিতির পক্ষ থেকে ও সংগঠনের দেয়া ক্রেস্ট ও ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত হন ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন। মিরসরাই সমিতি, সংযুক্ত আরব আমিরাতের সভাপতি বিশিষ্ট শিল্পপতি ফখরুল ইসলাম খান সিআইপির সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মোরশেদ আজমের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন সংবর্ধিত অতিথি ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এমপি। এতে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট সমাজসেবক ও ব্যাবসায়ী মোহাম্মদ মীর আলম মাসুক, মিরসরাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক, করেরহাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এনায়েত হোসেন নয়ন, বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম ভূঁইয়া প্রমুখ।

স্বাধীনতা পদকে ভূষিত সংবর্ধিত মুক্তিযোদ্ধা, সাবেক মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন মিরসরাইবাসী দলের নেতাকর্মীদের সম্মাননায় আবেগে আপ্লুত হন। তিনি স্মৃতিচারণ করেন মহান মুক্তিযুদ্ধ ও রাজনীতির দীর্ঘ গতিপথের মুহূর্ত। কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে সহকর্মী ও সহযোদ্ধাদের আন্তরিক ভূমিকার জন্য। রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ খেতাব স্বাধীনতা পুরষ্কারে ভুষিত হওয়ায় আমি সম্মানিত বোধ করছি। ১৯৭১ সালে যারা স্বাধীনতা সংগ্রামে অংশ নিয়েছেন তারাও সম্মানিত হয়েছেন।আমাকে রাষ্ট্রের এই সর্বোচ্চ সম্মান প্রদান করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও এই সরকার পুরো মিরসরাইবাসীকে গর্বিত করলো। পুরো চট্টগ্রামবাসীকে ধন্য করলো। আমি আমার এই অর্জন মিরসরাইবাসী সহ মহান মুক্তিযুদ্ধে সকল শহীদ ও সকল আত্মত্যাগকারীগনের জন্য উৎসর্গ করলাম।

স্মৃতিচারণকালে তিনি বলেন বঙ্গবন্ধু যখন ৭ মার্চ স্বাধীনতা ঘোষনা করেছিলেন। ঠিক তার কিছুদিন পর মিরসরাইয়ে ও যখন যুদ্ধ ছড়িয়ে পড়ে তখম মিরসরাইয়ের এই আবুতোরাব বাজারে দাঁড়িয়ে আমিও স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েছিলাম। শুভপুর ব্রিজ এলাকাসহ বিভিন্ন এলাকায় আমার সক্রিয় অংশগ্রহণকালের অনেক সহকর্মী আজ বেঁচে নেই। তিনি সকলের আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন।

মুক্তিযুদ্ধ ও রাজনীতিতে ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেনের কৃতিত্বপূর্ণ ভূমিকার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে ফখরুল ইসলাম খান সিআইপি তার বক্তব্যে বলেন, অর্থনীতি ও উন্নয়নসহ বিভিন্ন সূচকে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, যার স্বীকৃতিও মিলেছে।
তিনি আরো বলেন, আমরা দেশ থেকে দূরে আছি, দূরত্বে নয়। আঞ্চলিকতা ঘুচিয়ে এই দূর প্রবাসে আমরা সবাই বাংলাদেশি।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মিরসরাই সমিতির প্রধান উপদেষ্টা মোহাম্মদ আবুল হাশেম ভূঁইয়া, প্রধান পৃষ্ঠপোষক আলহাজ্ব মাজহার উল্ল্যাহ মিয়া, উপদেষ্টা মোহাম্মদ জাফর উল্ল্যাহ, উপদেষ্টা, জসিম উদ্দিন, উপদেষ্টা ইউসুফ শরীফ, উপদেষ্টা আবু ছায়েদ মোহাম্মদ ইউনুছ, উপদেষ্টা মোহাম্মদ আখতার উদ্দিন পারভেজ, সহসভাপতি সালাউদ্দিন হেলাল, নাজিম উদ্দীন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন আলতাফ, মুহাম্মদ মুসা, মোহাম্মদ জাফর উদ্দিন ভূঁইয়া, শরিফুল ইসলাম খোকন,যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক দিপক চন্দ্র দাস, সাংগঠনিক সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, সহ সাংস্কৃতিক সম্পাদক মোহাম্মদ আশরাফুল ইসলাম, সহ দপ্তর মো. ফজলুল করিম, সহ প্রচার সম্পাদক সরওয়ার উদ্দীন রনি, ক্রীড়া সম্পাদক মো. ওমর ফারুক প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে ‘স্বপ্নের মিরসরাই’ স্মারকগ্রন্থের মোড়ক উম্মোচন করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!