আইন না মেনে মিরসরাইয়ে স্কুল কমিটির সভাপতি প্রধান শিক্ষক!

আইন না মেনে মিরসরাইয়ে স্কুল কমিটির সভাপতি প্রধান শিক্ষক!

নিজস্ব প্রতিবেদক :::

উচ্চ আদালতের রায় ও প্রবিধানমালার তোয়াক্কা না করে স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি পদে নির্বাচিত করা হয়েছে এক প্রধান শিক্ষককে। চট্টগ্রামের মিরসরাই বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ইতোমধ্যে নির্বাচনের সব ধরণের আনুষ্ঠানিকতাও শেষ করেছেন। এখন শুধু বাকি আছে শিক্ষা বোর্ড কর্তৃপক্ষের অনুমোদন।

জানা গেছে, গত ১৮ এপ্রিল মিরসরাই বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের অভিভাবক সদস্য নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এরপর ২১ এপ্রিল নির্বাচিত অভিভাবক সদস্য ও শিক্ষক প্রতিনিধিদের অংশগ্রহনে সভাপতি পদে নির্বাচনের আনুষ্ঠিকতা শেষ করে স্কুল কর্তৃপক্ষ। এতে নির্বাচিত হন একই উপজেলার বারইয়ারহাট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এনামুল হক। ম্যানেজিং কমিটি গঠন প্রবিধানমালার (৭)২ এর বিধান ভঙ্গ করে তিনি ইতিপূর্বে বিগত কমিটির সভাপতি হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন। ওই শিক্ষককে আবারো ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি নির্বাচিত করায় বিস্ময় ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অভিভাবক ও স্থানীয় শিক্ষানুরাগীরা।

এদিকে স্কুল ম্যানেজিং কমিটি গঠন প্রবিধানমালা ২০০৯-এর ৭(২)-এ স্পষ্টত বলা আছে, কোনো শিক্ষক কিংবা শিক্ষক শ্রেণির সদস্য গভর্ণিং বডির সভাপতি পদে মনোনীত হইবেন না। অথচ আবারো নিয়ম ভঙ্গ করে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হিসেবে অন্য একটি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এনামুল হককে নির্বাচিত করা হয়েছে।

মিরসরাই বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আজিম উদ্দিন জানান, ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি অভিভাবক সদস্যদের মতামতের ভিত্তিতে নির্বাচন করা হয়েছে। বিদ্যালয়ের সভাপতি পদে এনামুল হক গতবারের মতো এবারও নির্বাচিত হয়েছেন এতে বিধি লংঘনের বিষয়টি তার জানা ছিলোনা।
প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালে গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জের ঝিনিয়া এম.এ হাইস্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি নির্বাচিত হন এবিএম আনিছুর রহমান। যিনি একই উপজেলার একটি বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক। ওই বছর তার সভাপতি পদের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট করেন স্কুলের এক শিক্ষার্থীর অভিভাবক মো. বাদশা মিয়া। রিটের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে ওই বছর ১৫ অক্টোবর ওই শিক্ষকের সভাপতি পদে থাকার বৈধতা নিয়ে রুল জারি করেন আদালত। ওই রুলের দীর্ঘ শুনানি শেষে ২০১৮ সালের ৯ মে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের (স্কুল, কলেজ ও মাদরাসা) কোনো শিক্ষক সভাপতি পদে নির্বাচিত বা মনোনীত হতে পারবেন না বলে রায় দেন হাইকোর্ট।

গতকাল রবিবার (২৮ এপ্রিল) বিষয়টি মিরসরাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুহুল আমিনকে জানালে তিনি বলেন, ‘এটা কিভাবে সম্ভব। এটাতো নিয়মের মধ্যে পড়েনা। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এধরনের অনিয়ম হওয়া উচিত নয়।’

এবিষয়ে চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর শাহেদা ইসলাম বলেন, ‘২০১৭ সালে এনামুল হক মিরসরাই বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতি নির্বাচিত হয়েছিলেন। তার ওই কমিটির মেয়াদ এখনো পূর্ণ হয়নি। ইতোমধ্যে কমিটির মেয়াদ শেষ হবে। তবে মেয়াদ শেষ হওয়ার পূর্বে নতুন কমিটি গঠনের নির্দেশনা রয়েছে।’

নতুন কমিটিতে এনামুল হকের সভাপতি হওয়ার বিষয়টি জানানো হলে বোর্ড চেয়ারম্যান বলেন, ‘যেহেতু হাইকোর্টের রিটের রায়ে সুস্পষ্টভাবে প্রবিধানমালার (৭)২ সম্পর্কে নির্দেশনা রয়েছে সেহেতু সভাপতি পদে শিক্ষক শ্রেণির কেউ মনোনীত হওয়া ঠিক নয়। এ ধরনের বিষয় যদি ঘটে তবে তা হবে ত্রুটিপূর্ন।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!